সাপ্তাহিক চাকরির খবর সবার আগে

পৃথিবীতে যদি কেউ আপনার সবচেয়ে বেশি ভালো চায় তারা হলো

এপ্রকার এক্স একটু ছ্যাঁচড়া টাইপের।এরা নিজেরাই ব্রেকআপ করবে,আর ছ্যাঁচড়ামো করে বলবে,আমরা কি বন্ধু হয়ে থাকতে পারি না এরা লুল টাইপের এক্স।আপনি যখন ব্রেকআপের পর প্রচন্ড ডিপ্বেন,তখন এরা মাঝে মাঝে ফোন দিয়ে বলবে.

আমি আসলে ভুল করেছি।আমাকে মাফ করে দেও।হাজারবার মাফ করলেও এরা দুদিন পর আপনার কাছে মাফ চাওয়ার জন্য ফোন দিবে।আসলে এদের উদ্দেশ্য মাফ চাওয়া নয়,উদ্দেশ্য হলো আপনাকে স্মরণ করে দেওয়া যে আপনার একজন এক্স আছে।

এরা হচ্ছে কালনাগ কালনাগিনী টাইপের এক্স।কেনো বললাম বুঝতে পারলেন না? ওয়েট বুঝিয়ে দিচ্ছি।ব্রেকআপের পর এরা এদের নতুন নাগরানী নাগরাজকে নিয়ে এসে শো-অফ করাবে আর বলবে,শীহী ইজ মাই হাবিউটবি।

এরা ফেমিলী মানবেনা টাইপ এক্স।চার পাঁচবছর রিলেশনে থাকার পর বিয়ে কথা উঠলে এরা অজুহাত দিবে,আমার ফেমিলি তোমাকে মানবেনা।কেনো মানবেনা কারণ হিসেবে আপনাকে এটাও বলতে পারে যে,আমার ফেমিলির সবাই সকালে পটি করে,কিন্তু তুমি তো রাতে পটি করো তাই।

এরা মরণব্যাধিতে আক্রান্ত এক্স।ব্রেকআপ করবে জান আমি আর বেশিদিন বাঁচবো না আমার এইডহইছে তুমি আমাকে ভুলে যাও এই বলে।আপনি যখন নাকের পানি চোখের পানি এক করে তার চল্লিশখাওয়ার জন্য ওয়েট করবেন,তখন কয়েক সপ্তাহ পর,

সে আপনার নাকের ডগারবিএফ নিয়ে ঘুরে বেড়াপৃথিবীতে যদি কেউ আপনার সবচেয়ে বেশি ভালো চায় তারা হলো এই প্রকার এক্স।এদের কমন ডায়লগ হলো,আমি তোমার ভালো চাই বলেই তোমার কাছ থেকে দুরে চলে যাচ্ছি।.

আসলে এরা আপনার না নিজেদের ভালো চায়।হয়তো আপনার থেকে ব্যাটার কাউকে পেয়ে গেছে তাই আবালমার্কা অজুহাতে আপনার কাছ থেকে মুক্তি চাচ্ছে এপ্রকার এক্সের প্রধান কাজ হচ্ছে খোঁচা মেরে কথা বলা।আর ব্রেকআপের সময় যদি আপনি বলছেন যে,

তোমাকে ছাড়া আমি থাকতে পারবো না” তাহলে মরছেন কারণ ব্রেকআপের পর হাজার ডিপ্রেশকাটিয়ে আপনি যখন একটু ভালো থাকার ট্রাই করবেন,তখনি এক্স খোঁচা মেরে বলবে,আমি বলেছিলাম না তুমি আমাকে ছাড়াই ভালো থাকতে পারবে।

এদের খোঁচা মারার কারণ হলো এরা চায় না আপনি ভালো থাকুন! এরা চায় ব্রেকআপের পর আপনি তার পা ধরে কান্নাকাটি করুন,তার পায়ের কাছে একটু আশ্রয় চান।

কেয়ারিং এক্স।এপ্রকার এক্স ব্রেকআপের পর আপনার এতো এতো খেয়াল রাখবে যে আপনার মনে হবে রিলেশনে থাকা অবস্থায়ও এরা আপনার এতো খোঁজ রাখেনি।আপনি কখন কোন ফ্রেন্ডের সাথে পাবলিক টয়লেটে হিসু করতে গেছেন এটাও তাদের নখদর্পনে থাকবে.

আর হ্যাঁ খোঁচা মেরে কথা বলতে এরাও সিদ্ধহস্ত।এ প্রকার এক্স আপনাকে একবার ছ্যাঁকা দিয়ে ব্যাঁকা করে দেওয়ার কয়েক দিনমাসবছর পর প্যাঁচআপ করতে আসবে।ভাইবোন রে,প্যাঁচআপ করছেন তো মরছেন।কেনো সেটা আর নাই’বা বললাম।

এ প্রকার এক্স চরম বাস্তবতার কাছে হেরে যায়।প্রতিষ্ঠিত না হওয়ার কারণে প্রিয়জন কে হারায়।মেয়েটা স্বামী একটু আড়াল হলেই চোখের জলে বুক ভাসায়।আর ছেলেটার সঙ্গি হয় নিকোটিন।

এদের ভালোবাসাটা বিশুদ্ধ হয়।এরা একজন আরেকজনকে দোষারোপ করে না।সবসময় নিজেকেই দোষী মনে করে।সম্মান আর শ্রদ্ধ্যা শুধুমাত্র এপ্রকার এক্সের প্রতিই আসে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *