Home / অন্যান্য টিপস / ব্লগিংয়ে অ্যাডসেন্সের বিকল্প আয়ের পথ

ব্লগিংয়ে অ্যাডসেন্সের বিকল্প আয়ের পথ

আয়ের জন্য গুগল অ্যাডসেন্স চমৎকার একটি মাধ্যম। কস্ট পার ক্লিক (CPC) ও কস্ট পার মাইল (CPM) এর হিসাব অনুযায়ী গুগল অ্যাডসেন্সের প্রতিদ্বন্দ্বী বলতে এখনও তেমন কেউ নেই। তবে গুগল অ্যাডসেন্সের অ্যাকাউন্ট পাওয়া ও সেটাকে সঠিকভাবে ব্যবহার করে আয় করা খুব সহজ কাজ নয়। তাই অনেকেরই প্রয়োজন পড়ে বিকল্প পথ। অ্যাডসেন্সের কয়েকটি বিকল্প নিয়ে আলোচনা করা হলো এ টিউটোরিয়ালে।অ্যাফিলিয়েশন
সাম্প্রতিক সময়ে অ্যাফিলিয়েশন মার্কেটিং তরুন ফ্রিল্যান্সারদের কাছে পছন্দের তালিকায় বেশ উপরের দিকে। ব্লগ মনেটাইজেশনের জন্য দিন দিন অ্যাফিলিয়েশন হয়ে উঠছে অপ্রতিদ্বন্দ্বী। ব্লগে কোনো পণ্যের বিজ্ঞাপন দেওয়ার পর সেটি বিক্রি হলে কমিশন পাওয়ার উপায় হচ্ছে অ্যাফিলিয়েশন। যেমন, অ্যামাজন অ্যাফিলিয়েশন করা যাবে আপনার সাইটে। বিশ্বের সর্ববৃহৎ এ ই-কমার্স সাইটের পণ্য আপনার সাইটের মাধ্যমে বিক্রি করে আয় করা যায়। এখন অনেকের নিশ্চিত আয়ের উৎস এটি।google-adsense-vs-affiliate-marketingঅ্যাফিলিয়েশনে পর্যপ্ত সময় দিতে হয় ও সাইটের সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন নিয়ে কাজ করতে হয়।অ্যাডসেন্স ঘরানার অন্য মাধ্যমগুলো
কস্ট পার ক্লিক (CPC) ও কস্ট পার মাইল (CPM) এর মাধ্যমে পে করার এখন প্রচুর সাইট রয়েছে। সেগুলো ব্যবহার করেও আয় করা যায়। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য কিছু সাইট হচ্ছে-ইনফোলিঙ্কস
বিডভার্টাউজার
রেভেনিউহিটস
অ্যাডভার্সালঅ্যাডসেন্সের বিকল্প হিসেবে এ সাইটগুলো সময়ের সঙ্গে পেয়েছে জনপ্রিয়তা।স্পন্সর আর্টিকেল
এমন অনেক সাইট রয়েছে যেগুলোতে আপনার সাইটকে সাবমিট করলে সেখানে অন্যদের প্রোডাক্ট লেখার জন্য আমন্ত্রণ পাবেন। এক্ষেত্রে আপনাকে প্রতি আর্টিকেলের জন্য পে করা হবে। ১০, ২০ কিংবা ৫০ ডলারের বিনিময়ে তাদের প্রোডাক্টের জন্য আপনার সাইটে আর্টিকেল লিখতে পারেন।4263193267_fb5cee0c57_zএমন সাইটগুলোর মধ্যে জনপ্রিয় একটি হচ্ছে Sponsored Reviews । এতে সাবমিশনের পর তারা আপনার সাইট রিভিউ করে অনুমোদন দেবে।এরপর যারা আপনাকে দিয়ে লেখাতে চায় তাদের প্রোডাক্ট সম্পর্কে আপনার সাইটের মাধ্যমে যোগাযোগ করবে। লেখা শেষ হলেই আপনাকে পে করে দেওয়া হবে।সরাসরি বিজ্ঞাপন
এ ক্ষেত্রে কিছু কোম্পানি আছে যেখানে আপনি আপনার মতো করে বিজ্ঞাপন তৈরি করবেন এবং আপনার সাইটে স্পেস ভাড়া দিবেন। তবে এ ক্ষেত্রে আপনার সাইটকে অবশ্যই ভালো মানের হতে হবে। ভালো পরিমানে ভিজিটর নিয়মিত আসতে হবে আপনার সাইটে। সাধারনত স্পেসের জন্য আপনাকে প্রতি মাসে পে করা হবে।স্থানীয় কোম্পানির বিজ্ঞাপনও এ ক্যাটাগরির অন্তর্ভূক্ত। সাইটের ভিজিটর ভালো হলে কোম্পানিগুলোই আপনার সঙ্গে যোগাযোগ করবে। আপনার সাইটে মাসিক হিসেবে স্পেস ভাড়া দিয়ে বড় অংকের অর্থ আয় করতে পারবেন।

About admin

Check Also

অ্যান্ড্রয়েড ডেভেলপারদের কাজের দারুণ ৫ টুল

অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ ডেভেলপ করতে গেলে প্রয়োজন হয় অনেক রকমের ওয়েবসাইট। ডেভেলপারদের কাছে এসব সাইট টুল হিসেবে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *